কা’তারভিত্তিক গণমাধ্যম আলজাজিরাকে আফগানিস্তানে সদ্য ক্ষমতাচ্যুত আশরাফ গনি সরকারের এক মন্ত্রী জানিয়েছেন, মাত্র ৬ জন তালেবান সদস্য বাদাখশান প্রদেশের শাঘনান জেলা দখল করে। এই জেলায় প্রায় ৬০ হাজার মানুষ বসবাস করে।

এ’ই মন্ত্রী আরও জানান, অল্প সংখ্যক তালেবান যোদ্ধা ব্যাপক এলাকা দখল করেছে এমন আরও অনেক উদাহরণ আছে। তালেবানও এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

উ’ল্লেখ্য,আফগানিস্তানের ৪২১টি জেলার সমন্বয়ে গঠিত ৩৪টি প্রদেশের প্রায় সবকটা প্রদেশই তালেবান যোদ্ধারা দখল করেছে মাত্র ৭ দিনে। এর মধ্যে রাজধানী শহর কাবুলও আছে।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক গবেষণা কর্মসূচি দ্যা সেন্টার ন্যাভাল অ্যানালাইসিসের পরিচালক জোনাথন স্রোডেন বলেন, ১ লাখের কম সংখ্যক তালেবান সমগ্র আফগানিস্তান দখল করেছে।

তা’রা দখল করতে পারলেও ধরে রাখাটা তাদের জন্য চ্যালেঞ্জিং হবে। দেশটিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য বাড়াতে হবে। অন্যথায় আফগানিস্তানে বিশৃঙ্খলা এবং অরাজকতা দেখা যাবে।

তা’লেবান ইতোমধ্যে আফগানিস্তানের সাবেক সরকারের সঙ্গে কাজ করা নিরাপত্তা বাহিনীর সিনিয়র কর্মকর্তা থেকে শুরু করে সবার প্রতি সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করেছে। নিজস্ব যোদ্ধা এবং এই নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের সমন্বয়ে একটি বাহিনী গড়ে তোলার ঘোষণা দিয়েছে তালেবান।