স্বামী থাকা সত্ত্বেও পরকীয়া করতে গিয়ে ধরা খেলেন স্ত্রী, (ভিডিও)

শুরু থেকেই প’রকীয়া চলে আসছে, কিছু স্বামী-স্ত্রী আছে যারা তাদের স্বামী স্ত্রী থাকা সত্বেও অন্যদের সাথে প’রকীয়ায় লি’প্ত হয়, এই প’রকীয়া দেখা যায় পূর্বের স’ম্পর্ক থেকেও সৃষ্টি হয়।

প’রকীয়ার কারণে অনেক নারী হারিয়েছে সংসার, দেখা যায় কিছু প্রবাসীর স্ত্রীর প’রকীয়ায় লিপ্ত হয়, এবং স্বামীর পা’ঠানো টাকা দিয়ে তারা প’রকীয়া স্বামীর সাথে আনন্দ ই’নজয় করে, এমন একটি প’রকীয়া হাতেনাতে ধ’রা পড়েছে।

আরোও পড়ুন..’যে ৪ কারণে গোসল ফরজ হয়’,
গো’সলের ফরজ অবশ্য পা’লনীয় কাজ হলো তিনটি ( কুলি করা, নাকে পানি দেয়া ও সারা শরীরে পানি পৌঁছানো) । এ তিনটি কাজ য’থাযথভাবে পালন না করলে ফরজ গো’সল আদায় হয় না।

তবে ইসলামী শ’রিয়ত মতে সব গোসলের বিধান সব সময় এক নয়। তা কখনো ফরজ, কখনো সুন্নত আর কখনো নফল বা মুস্তাহাব।
ফরজ গোসল ইসলামী জীবন বিধানের গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়।

কারো ওপর গোসল ফরজ হলে সঠিক পদ্ধতিতে গোসল আদায় না করা পর্যন্ত ওই ব্যক্তি না’পাক থাকে। আর না’পাক অবস্থায় নামাজ পড়লে সওয়াবতো হবেই না বরং ক’ঠিন শা’স্তির মুখোমুখি হতে হবে।

চারটি কারণের যে কোন একটি ঘটলে গোসল ফরজ হয়ে যায়। যেমন:
১। জুনুবি অর্থাৎ কামনা পূরণের পর গোসল ফরজ হয়। যেমন—স’হবাস, স্ব’প্নদোষ বা যেকোনো উপায়ে বী’র্যপাত হলে। (সুরা : মায়িদা, আয়াত : ৬)

২। না’রীদের মা’সিক র’ক্তস্রাব বন্ধ হওয়ার পর পবিত্র হওয়ার জন্য গো’সল ফরজ হয়। (বুখারি, হাদিস : ৩০৯)
৩। ম’হিলাদের নে’ফাস বন্ধ হওয়ার পর গোসল ফরজ হয়। (কানজুল উম্মাল : ৯/১১০৯)

৪। মৃ’ত ব্যক্তিকে গো’সল দেওয়া জী’বিতদের ওপর ফরজ। (বুখারি, হাদিস : ১১৭৫)
মহান আল্লাহ তা’আলা ইরশাদ করেন, ‘তোমরা যদি না’পাক (জানাবাত) অবস্থায় থাকো, তবে নি’জেদের দেহ (গোসলের মাধ্যমে) ভা’লোভাবে প’বিত্র করে নাও।’ (সুরা মায়েদা ৬)

Articles You May Like

Leave a Reply

x