স্বামীকে ডিভোর্স দিয়েছেন ডা. সাবরিনা

গ্রেপ্তার করা হয়েছে করোনাভা’ইরাসের ভুয়া রিপোর্ট দিয়ে দেশব্যাপী আলোচিত ডা. সাবরিনা চৌধুরীকে। স্বামী আরিফ চৌধুরীর সঙ্গে মিলে করোনার এই ক্রান্তিকালেও অবিশ্বাস্য জালিয়া’তির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

তবে গ্রেপ্তারের আগে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, আরিফ চৌধুরী আমার স্বামী নন, তাকে ডিভোর্স লেটার পাঠি’য়েছি। দুই মাসের মধ্যে সেটা কার্যকর হবে।
করোনার প্রাদুর্ভা’বের শুরু থেকেই জেকেজি হেলথ কেয়ার নামের একটি স্বেচ্ছা’সেবী সংগঠনের আড়ালে এমন অপকর্ম করে আসছিলেন এই দুজন।

প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ছিলেন ডা. সাবরিনা এবং প্রধান নির্বাহীর দায়িত্বে ছিলেন আ’রিফ চৌধুরী। এর আগে বেশ কয়েকবার স্বামী-স্ত্রীর পরিচয় দিলেও প্রতারণা ধরা পড়ার পর ডিভোর্সের কথা জানান ডা. সাবরিনা।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ চৌধুরী গ্রেপ্তার হওয়া’র পর কিছুদিন গা ঢাকা দিয়েছিলেন সাবরিনা। তারপর প্রকাশ্যে আসলেও তাকে গ্রেপ্তার করা হয়নি। এ নিয়ে তীব্র স’মালোচনার মুখে অবশেষ আজ রোববার দুপুরে জিজ্ঞাসা’বাদ শেষে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জেকেজি হেলথ কেয়ার থেকে মোট ২৭ হাজার করোনার রিপোর্ট দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১১ হাজার ৫৪০ জনের নমুনা পরী’ক্ষা করা হয়েছে আইইডিসি’আরের মাধ্যমে। সঠিক এই রিপোর্টগুলো ছাড়া বাকি ১৫ হাজার ৪৬০টি রিপোর্টই ভুয়া।

টাকা নিয়ে মানুষের হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয়েছে ল্যাপটপে বানানো সনদ। অথচ এই রিপোর্টগুলোর জন্য তারা জন’প্রতি ৫-১০ হাজার টাকা ক’রে নিয়েছে।
গত মাসের ২৪ জুন জেকে’জির এই প্রতারণার বিষয়টি প্রথম’বারের মতো প্রকাশ্যে আসে।

ওইদিনই প্রতিষ্ঠানটির গুল’শান কার্যালয়ে অভিযান চালি’য়ে আরিফ চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়। কিন্তু ডা. সাবরিনার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থাই নেওয়া হচ্ছিল না।

সূত্র বলছে, চিকিৎসক’দের প্রভাবশালী এক সংগঠনের কয়েকজন নেতার সঙ্গে সম্পর্ক থাকায় এতদিন তার কিছু হয়নি। তবে অবশেষে আর শেষ রক্ষা হলো না আলো’চিত চিকিৎ’সক সাবরিনার।

Articles You May Like

Leave a Reply

x