সেতুর অভাবে পানির মধ্য দিয়ে ‘মরদেহ’কে নিয়ে যেতে হয় কবরস্থানে!

সেতুর অভাবে পানিতে ভিজে যেতে হয় কবরস্থানে- কক্সবাজারের রামুর গর্জনিয়ার গর্জয় ছড়ার উপর একটি সেতুর অভাবে দু’র্ভো’গ পোহাচ্ছেন শিয়া পাড়ার শত শত মানুষ।

সেতুর দাবিতে এলাকাবাসী দীর্ঘ দিন ধরে সোচ্চার হলেও সমাধান মিলছে না। ওই গ্রামে কেউ মা”রা গেলে ফুটে ওঠে দুর্ভোগের চিত্র।

পানি মাড়িয়ে পায়ে হেঁটে লা”শ নিয়ে যেতে হয় ক’ব’র’স্থানে। সর্বশেষ গতকাল শনিবার এই চরম দু’র্ভো’গে’র মুখোমুখি হতে হয় এলাকার মানুষকে।

জানা গেছে, শনিবার গর্জনিয়া বাইশারী ইউনিয়নের হরিণ খাইয়া গ্রামের বীর মুক্তিযো’দ্ধা মোজাফফর আহমদ প্রকাশ মুজারু (৭৮) মৃ”ত্যু’বরণ করেন।

সেই বীর মুক্তিযো’দ্ধা’র লা”শ শনিবার বিকালে শিয়াপাড়া জামে মসজিদ ক’ব’র’স্থানে দা’ফ’ন করার জন্য নিয়ে যাওয়ার সময় করুন পরিণতির সৃষ্টি হয়। গর্জনিয়ার শিয়াপাড়ার মানুষকে মুখোমুখি হতে হয় অ”মানবিক ও করুণ বাস্তবতার।

শুধু তাই নয়, জানাজায় অংশ নিতে কেউ বাঁশের তৈরি ঝুঁ’কি’পূর্ণ সাঁকো দিয়ে। আবার কেউ গলা পর্যন্ত পানিতে ভিজে ক’ব’র’স্থানে যান।

এলাকার মুরব্বি আবুল কালাম জানান, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা এ গুলো দেখেও নীরব ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন দীর্ঘ সময় ধরে।

অথচ স্থানীয় সংসদ সদস্য থেকে শুরু করে উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অনেকবার এই স্থান পরিদর্শন করেছেন। কিন্তু আশ্বাসের বাণী শুনিয়ে এলাকা ত্যা’গ করেন। কাজের কাজ কিছুই করতে পারেননি।

গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্য আবদুল জব্বার বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা চেয়ারম্যানকে এই ভো’গা’ন্তির কথা অনেকবার বলেছি। কিন্তু তারা কেউ কথা শুনেননি।

গর্জনিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলামকে একাধিকবার মোবাইলে কল দেয়ার পরও তিনি কল রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Articles You May Like

Leave a Reply

x