সুখবর! ‘করোনা ভাইরাস’ থেকে মুক্তি পেলেন ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মর্তুজা

শনাক্ত হওয়ার ২৪ দিন পর কো’ভিড-১৯ থেকে সেরে উঠেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার ছোট ভাই মোরসালিন বিন মুর্তজার করোনা’ভাইরাস পরীক্ষার ফলও এসেছে নেগেটিভ। তবে আবারও মাশরা’ফির স্ত্রী সুমনা হকের পরীক্ষার ফল এসেছে পজিটিভ।

পরীক্ষার জন্য রোব’বার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছিল মাশরাফিদের। মাশরাফি জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রাতে তারা জানতে পেরেছেন পরীক্ষার ফল।

মাশরা’ফির শ্বাশুড়ী ও শ্যালিকা করোনা’ভাইরাস থেকে সেরে উঠেছেন আগেই। তারা নড়াই’লে আক্রান্ত হলেও সুস্থ হয়েছেন ঢাকায় একটি হাসপা’তালে চিকিৎসা নিয়ে। মাশ’রাফির ঢাকা’র বাসার এক গৃহকর্মীও আগেই সুস্থ হয়েছেন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে।

করোনাভা’ইরাসের উপসর্গ নি’য়ে গত ১৯ জুন পরীক্ষা করিয়েছিলেন মাশরাফি। পরদিন তার ফল আসে পজিটিভ। আক্রান্ত হওয়া’র পর বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিয়ে’ছেন তিনি।

অনে’কটা সুস্থ অনুভব করায় ডাক্তা’রের পরাপর্শে ১০ ও ১২ দিন পর দুই দফায় পরীক্ষা করিয়ে’ছিলেন। কিন্তু তখনও পজিটিভ আসে ফল। এরপর আবা’র পরীক্ষা করিয়েছেন একটু সময় নিয়ে। এবার ফুরিয়েছে প্রতীক্ষা।

মোরসালিনের করোনা’ভাইরাস শনাক্ত হয়েছিল গত ২৩ জুন, মাশরাফির স্ত্রী সুমনা হকের ২৫ জুন। আক্রান্ত হওয়ার পর বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিয়েছেন তারা তিন জন।

মাশরাফির করোনা’ভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পরদিনই তার ৯ বছর বয়সী মেয়ে হুমায়রা ও সাড়ে ৫ বছর বয়সী ছেলে সাহেলকে পাঠিয়ে দেওয়া হয় নড়াইল।

অ্যাজমার পুরনো সমস্যার কারণে মাশরা’ফিকে নিয়ে একটু শঙ্কার জায়গা ছিল। তবে তিনি জানালেন, পজিটিভ থেকে নেগেটি’ভ হওয়ার এই পরিক্রমায় খুব গুরুতর সমস্যা হয়নি তার। জ্বর, শরীর ব্যথা, মাথা ঘোরানো, খাবারের স্বাদ হারানো, এসব অবশ্য ছিল।

বাংলাদেশের ক্রিকেটা’রদের মধ্যে এর আগে বাঁহাতি স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপু ও সাবেক ক্রিকেটার নাফিস ইক’বাল আক্রান্ত হয়েছিলেন তাদের পরিবারের কয়েকজন সদস্যসহ। তারা সবাই সুস্থ হয়ে উঠেছেন।

Articles You May Like

Leave a Reply

x