সারা বিশ্বে ‘করোনা ভাইরাসের’ ভ্যাকসিন দেবে চীন; প্রস্তুত সবকিছু

বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কার করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে।

কোন দেশ এখনো সাফল্য ভাবে এই প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারেনি।
তবে অনেক দেশই এই প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কারের আশার আলো দেখিয়েছে।

যদি কোন দেশ সাফল্যের সাথে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরী করতে পারে,
তাহলে এইটা হবে জাতির জন্য সুফল।

সেইসাথে চীনের ভ্যাকসিন‌ কম্পানি প্ল্যান্ট জানিয়েছেন, একবার করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধক কার্যকারী প্রমাণিত হলে,
তাহলে প্ল্যান্ট বছরে প্রায় ১০ কোটি ভ্যাকসিন উৎপাদন করতে পারবে।

উৎপাদনকারী সংস্থা দ্য ফোর্থ কনস্ট্রাকশন কো লিমিটেড অধীনে রয়েছে বিশ্বের বায়োমেডিকেল বাজারের প্রায় ৮০ শতাংশ।

তারা বি এস এল-3 পদ্ধতিতে কাজ করতে সক্ষম,
এর আগেও সার্স ও মার্সে ভাইরাস এর ক্ষেত্রে এই পদ্ধতি অবলম্বন করেছিলেন।

১৯৫৩ সালে প্রতিষ্ঠিত হেবেইর এই সংস্থা অ্যান্টিবডি,
সেল থেরাপি এবং ইনসুলিন উৎপাদনের কাজ করে।

এপ্রিল মাসে চিনের সিনোভেক বায়োটেক তাদের প্রতিষেধকের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়েছে।
যদি তারা সফল হয় তাহলে তারাও বিপুল পরিমাণ প্রতিষেধক উৎপাদন করতে পারবে।

সিনোভেকও ফার্ম তৈরির জন্য ৭০ হাজার বর্গকিলোমিটার জমি নিয়ে রেখেছে বেজিং প্রশাসনের কাছ থেকে।

Articles You May Like

Leave a Reply

x