শীতে পাহাড় ভ্রমণের সতর্কতা তা না হলে দুর্ঘটনা


শীতে ভ্রমণ পিপাসুদের মন যেন ঘরেই থাকে না। ঘরে বসে এ মানুষগুলো বিভিন্ন স্থানে ভ্রমণের পরিকল্পনা করতে থাকে। বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের একটা বড় অংশ হলো পাহাড়ি এলাকা। তাই শীত আসা মানেই ভ্রমণ পিপাসুদের মাথায় হাইকিং আর ক্যাম্পিং এর ভূত চাপে। রোমাঞ্চ যেখানে সেখানে কিছু চ্যালেঞ্জতো থাকবেই। পাহাড়ে ভ্রমণ করতে গিয়ে অনেক সময় সম্মুখবর্তী হতে হয় কিছু দুর্ঘটনার। তাই নিরাপদে পাহাড়ে ভ্রমণের জন্য কিছু সতর্কতা অবলম্বন করতেই হবে।

 সতর্কতামূলক টিপস সম্পর্কে জেনে নিন, নিরাপদে ভ্রমণ করুন: 

  • পাহাড়ের ভ্রমনের পূর্বে আবহাওয়া সম্পর্কে জেনে নিন। আবহাওয়ার কারণে রাস্তাঘাট পিচ্ছিল হতে পারে। তাই আগে থেকেই পরিস্থিতি বুঝে নেওয়া জরুরি।
  • শীতে হাইকিং এর জন্য উপযুক্ত পোশাক নির্বাচন জরুরি। পাহাড়ের শীতের সঙ্গে শহরের শীতের তুলনা করবেন না ভুলেও। হাইকিং-এর সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার জন্য আরামদায়ক পোশাক নির্বাচন করুন।
  • পাহাড়ে যেহেতু যাবেন প্রাকৃতিক নানা সমস্যার সঙ্গে মশার উপদ্রবের কথা মাথায় রাখতে হবে। কথায় আছে-‘মশার ওষুধ মশারি’। বিশেষ কীটনাশকযুক্ত মশারি বাজারে পাওয়া যায়। কিন্তু সেটি তো রাতে ঘুমানোর সময় কাজে আসবে। ভ্রমণের সময়? সেখানেও তো মশা অতিষ্ঠ করে তুলতে পারে। মশারি নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অডোমস ক্রিম রাখুন।
  • বাইরে বের হয়ে চলাফেরার সময় ফুলহাতা জামা ও প্যান্ট পরে নেবেন। শীতে হলে এমনিতেই জ্যাকেট পরতে হবে। গলায় মাফলার পরুন। মনে রাখবেন পাহাড়ে শীতের সময় শীত ও গরমের সময় গরম বেশি।
  • হাইকিং এর সময় শর্টকাট নেওয়ার মানে নেই। অনেক সময় এসব রাস্তা বেশ বিপজ্জনক হয়।
  • শীতে হাইড্রেটেড থাকা খুব জরুরি। পাহাড়ে কেমন পানি পাওয়া যায় তার ঠিক নেই। রিফিলযোগ্য পানির বোতল সঙ্গে রাখুন। সঙ্গে পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট রাখতে পারেন। খাবারে কোনো আপোষ করবেন না। সঙ্গে পর্যাপ্ত খাবার রাখুন।
  • সূর্যের অতিরিক্ত তাপ থেকে নিজেকে বাঁচিয়ে রাখুন। চোখে এক জোড়া সানগ্লাস ও সানস্ক্রিন রাখা জরুরি।
  • পাহাড়ি রাস্তায় পোকামাকড়ের উপদ্রব অস্বাভাবিক কিছু নয়। তাই সঙ্গে পোকা নিরোধক ওষুধ রাখবেন। হাঁটতে গিয়ে অনেক সময় উরুতে, পায়ে আঘাত লাগতে পারে বা ঘা হতে পারে। তাই সঙ্গে বেটনোবেট অয়েন্টমেন্ট রাখুন।
  • প্রয়োজনীয় কিছূ ওষুধপত্র যেমন-প্যারাসিটামল, নাপা, খাবার স্যালাইন ইত্যাদি জরুরি কিছু রাখতে হবে সাথে।
  • পাহাড় ভ্রমণ করে ফেরার পর যদি জ্বর হয় তবে অবশ্যই দ্রুত বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

পাহাড়ে ভ্রমণ করবেন এমন সিদ্ধান্তটি সবার আগে নিয়ে নিন। তারপর গুছিয়ে নিন ব্যাগ-ব্যাগেজ। ভ্রমণের গুরুত্বপূর্ণ উপকরণ যেমন ক্যামেরা, মুঠোফোন, ফোনের চার্জার, ক্যাপ ও সানগ্লাস সাথে রাখবেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *