শাহেদের চ্যালেঞ্জ, ৬ মাসের বেশি আটকে রাখা যাবে না

নানা সমালোচনা আর জল্পনা-কল্পনা শেষে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যা’ন মোহাম্মদ শাহেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সাতক্ষী’রা সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যেতে চেয়েছিলেন তিনি, তবে র‌্যাবের তৎপরতায় সম্ভব হয়নি।

সেখান থেকে হেলিকপ্টারে তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে আসা হয় র‌্যাব হেড কোয়ার্টা’রে। এমন পরিস্থিতি’তেও শাহেদের দম্ভোক্তি অবাক করেছে র‌্যাব সদস্যদের। র‌্যাবের উদ্দেশ্যে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে শাহেদ বলেন, আমাকে ৬ মাসের বেশি আটকে রাখা যাবে না।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটে’ন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, দেশের কোটি কোটি মানুষ যে ক্ষুব্ধ, এ নিয়ে তার কোনো বিকার নেই। এখনো সে দম্ভোক্তি করছে, চিৎকার করে কথা বলছে।

যে গণমাধ্যম’কর্মীরা তার ছবি তুলছিলেন, তাদেরকেও হুমকি দিয়েছেন শাহেদ। তার নিজের নামে একটা পত্রিকার লাইসেন্স আছে বলে মনে করিয়ে দি’য়েছেন সবাইকে।

কর্নেল আশিক বিল্লাহ আরো বলেন, শাহেদ খুব ধুরন্ধর। প্রতারণার মামলায় সে আগেও কয়েকবার জেলে গিয়েছিল। সুতরাং আইনের মারপ্যা’চগুলো খুব ভালো করে জানা আছে তার।

সে কারণেই হয়তো এমন দম্ভোক্তি। আম’রা সেসবে কান না দিয়ে তার কাছ থেকে অন্যান্য প্রতারণার তথ্য আদায়ে’র চেষ্টা করছি। তবে সে বিভ্রান্তিকর তথ্য দেওয়ার চেষ্টা করছে।

গত ৬ জুলাই বিকেলে উত্তরার ১১ নম্বর সেক্টরের ১৭ নম্বর রোডে অবস্থিত রিজেন্ট হাসপা’তালে অভিযান চালায় ভ্রা’ম্যমাণ আদালত। এতে নেতৃত্ব দেন র‌্যাব সদর দপ্তরের নির্বাহী ম্যাজি’স্ট্রেট সারওয়ার আলম।

অভিযানে প্রমাণ মেলে, ৩৫০০ থেকে ৪০০০ টাকা করে নিলেও হাজার হাজার মানুষকে ভুয়া করোনার সার্টিফিকে’ট ধরিয়ে দিয়ে’ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এছাড়া চিকিৎসার অস্বাভাবিক ফি দেখিয়ে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা।

Articles You May Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *