শালিকে ঘুমের টেবলেট খাওয়াইয়া ‘ধর্ষণ’ করে দুলাভাই

রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় ইভা আক্তার (১২) নামের এক মেয়ে ধর্ষণের শিকার হয়ে আত্মহত্যা করেছে।

ইভার পরিবার বলছে, সে দুলাভাইয়ের ধর্ষণের শিকার হয় সে নিজে আত্মহত্যা করছে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে থানায় মামলা করা হয়েছে।

গত শুক্রবার ইভার লাশ রাজশাহী মেডিকেলে ময়নাতদন্তের জন্য নেওয়া হয়েছে।

ইভা পুঠিয়া উপজেলার রামজীবনপুর গ্রামের এক ভ্যান চালকের মেয়ে ছিলেন।

ইভা পুঠিয়া বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর একজন ছাত্রী ছিলেন।

গত বৃহস্পতিবার ইভা আক্তার তার নিজ বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।

পরের দিন শুক্রবার পুলিশ তার লাশ রাজশাহী মেডিকেলে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।

ইভার বাবা সেলিম হোসেন জানান,
প্রায় তিন মাস আগে একই উপজেলায় এখলাস আলীর সাথে তার বড় মেয়ের বিয়ে দেন।

প্রায় ১৫ দিন আগে ইভা আক্তার তার বড় বোনের বাড়িতে বেড়াতে যায়,
সেখানে প্রায় সাত দিনের মত থাকে ইভা আক্তার।

তারপর সে বাড়িতে চলে আসে,
বাড়িতে এসে কারো সঙ্গে কথা বলে না,
পরে ইভা তার মা কে বলে,
তার দুলাভাই তাকে ঘুমের ট্যাবলেট খাওয়াইয়া তাকে ধর্ষণ করে।

এই ঘটনায় ইভার বাবা তার জামাই দের ফ্যামিলির কাছে বিচার চাইলে তারা কোন বিচার করেনি।

তিনি আরো বলেন, বৃহস্পতিবার দুই মেয়েকে বাড়িতে রেখে আমি ভ্যান চালাতে গেলে,
পরে খবর পাই আমার ছোট মেয়ে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

পুঠিয়ায়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম বলেন,
এই ঘটনায় ইভার বাবা,
এখলাস আলীর এবং তার বাবা-মার বিরুদ্ধে মামলা করেন।

Articles You May Like

Leave a Reply

x