মসজিদ স্থানান্তর করার কোনো বিধান নেই: মুসলিম পারসোনাল ল বোর্ড

দীর্ঘ অপেক্ষার পর বাবরি মসজিদের বিতর্কিত রায়ে অসুন্তুষ্টি প্রকাশ করেন ভারতীয় মুসলমানদের ঐক্যবদ্ধ সংস্থা আল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল বোর্ড।
শনিবার সকালে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট রায় দেয়ার পরপরই তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানান এই সংগঠন।

সুপ্রিম কোর্টে মুসলিমদের পক্ষে প্রতিনিধিত্বকারী আইনজীবী জাফরাইন জিলানি সংবাদ সম্মেলনে বলেন, বাবরি মসজিদের জমির মালিকানার পক্ষে সব ধরনের প্রমাণ সুপ্রিমকোর্ট স্বীকার করেছে। অযোধ্যায় ১৫২৮ সালে মসজিদটি নির্মাণ করা হয়েছিল। ১৯৪৯ সালের ২২/২৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত সেখানে নিয়মিত নামাজ আদায়ের বিষয়টিও বিচারকরা স্বীকার করেছেন।

তিনি আরো বলেন ইসলামে মসজিদ স্থানান্তরের কোনো সুযোগ নেই।যেখানে একবার মসজিদ স্থাপন হয়েছে সেখানে সারাজীবন ওই মসজিদ থাকবে।

ভারতীয় কোর্ট দীর্ঘদিনের হিন্দু-মুসলিম সংকট সমাধানে যে রায় দেন
উক্ত রায়ে কোর্ট বলেন বাবরি মসজিদের স্থানে মন্দির স্থাপন করার এবং তার সাথে
বাবরি মসজিদ স্থানান্তরিত করে শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপিত করতে জায়গা জমির বরাদ্দ দেয়ার আদেশ দেন।
আর উক্ত জমি অধিগ্রহণ করতে হবে ভারতীয় সরকারকে।

এ দিকে রায়ে সন্তুষ্ট নয় ভারতীয় মুসলিম সমাজ।
বাবরি মসজিদকে কেন্দ্র করে অনেক বছর যাবৎ ভারতে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা চলে আসছে,তবে এই রায়ের মাধ্যমে উক্ত সংকট নিরসনের চেষ্টা করলেও নিরসন হবে বলে আশা করছেনা ভারতের বুদ্ধিজীবিরা।

বাবরি মসজিদটি ১৫২৮ অযোধ্যায় নির্মাণ করা হয়েছিলো।তবে ভারতের হিন্দুদের দাবি মসজিদটি যে স্থানে স্থাপিত হয়েছে উক্ত স্থানে আগে মন্দির ছিলো।
১৯৪৯ সালের ২২/২৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত নিয়মিত নামাজ আদায় করেছে মুসলিমরা।
তবে পরবর্তীতে ভারতের হিন্দুরা মসজিদটি ভেঙ্গে পেলে।

Leave a Reply

x