মন্দ জ্বীনেরা আমাদের ক্ষতি করতে পারে কি?

জ্বীন ফেরেশতা’র মতই এক সৃষ্টি, যাদের’কে আমরা দেখতে পাই না। কিন্তু মানুষের মতই তারা স্বাধীন ইচ্ছা’শক্তির অধিকারী, যার মাধ্যমে তারা ভালো বা মন্দ বাছাই করতে পারে।

অনেকের মধ্যেই ধারনা হচ্ছে, জ্বীন ফেরেশতাদের মধ্য থেকে বেরিয়ে যাওয়া একটি অংশ এবং শয়তান ফেরেশ’তাদের মধ্যে থাকার কারনে তাকেও অনেকে ফেরেশতা হিসেবে চিন্তা করে। তবে কুরআনের বিশ্লে’ষনের দিক থেকে তারাও স্বতন্ত্র এক সৃষ্টি।

জ্বীনে’রা আমাদের ক্ষতি করতে পারে তবে তা হয়তো শারীরিক কোন ক্ষতি নয়। কারো কারো ধারনা, জ্বীন কোন মানুষের উপর ভর করে তাকে ব্যব’হারের মাধ্যমে তার ক্ষতি করতে পারে। তবে আমার কাছে মনে হয় না, এটি যথার্থ কোন চিন্তা’ভাবনা।

তবে আমরা যে ক্ষতির শংকা করতে পারি, শয়তান ও তার অনুসারী অন্যান্য মন্দ জ্বীন আমাদের’কে মন্দ কাজ করার জন্য ওয়াস’ওয়াসা তথা কুমন্ত্রণা প্রদান করতে পারে।

তবে আমরা যত’ক্ষণ পর্যন্ত আল্লাহর নির্দেশনা স্মরণ রাখবো এবং সেই অনুযায়ী নিজেদের পরিচালনা করবো, মন্দ জ্বীনের এই প্রভাব আমাদের উপর কাজ করবে’না। এমনকি যদি মুহূর্তের খেয়াল’হীনতায় যদিও কোন কাজ করতে উদ্যত হই, আমরা আবার সেখান থেকে ফিরে আসতে পারবো।

সুতরাং মন্দ জ্বীনের কাছ খেকে শারী’রিক ক্ষতির ভয়ের কোন কারন নেই তবে আমাদের সতর্ক থাকা উচিত যাতে করে তারা আমাদের মনের উপর কোন প্রকার নেতি’বাচক ও মন্দ প্রভাব বিস্তার করতে না পারে।

Leave a Reply

x