ভৌভাতে বড়লোক আত্মীয় স্বজনদের দাওয়াত না দিয়ে, হতদরিদ্র শিশুদের খাওয়ালেন নব দম্পতি!

হতদরিদ্র পরিবারের এক’শ শিশু পেটপুরে দুপুরের খাবার খেয়েছে বৌভাতের অনুষ্ঠানে। এই আয়োজন করা হয়েছিলো শুধু তাদের জন্যই। নীলফামারী সদর উপজেলার কচুকাটা ইউনিয়নের কোরানী পাড়া এলাকায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে

এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রাথমিকে অধ্যয়নরত শিশুদের খাওয়ানোর ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগ নেন সদ্য বিবাহিত এক দম্পতি।

রোববার দুপুর ১২টা থেকে বেলা তিনটা পর্যন্ত এলাকার আমন্ত্রিত শিশুদের খাওয়ানো হয় উন্নতমানের খাবার। তালিকায় ছিলো পোলাও, ভাত, ডাল, ডিম, সালাদ, সবজি, মাছ, মাংস, মিষ্টি, কোমল পানীয় প্রভৃতি।

বৌভাতে শিশুদের খাবার খাওয়ানোর কাজে সহায়তা করে সেইফ ফাউন্ডেশন। বৌভাত অনুষ্ঠানে খাবার খেয়ে আনন্দিত শিশুরাও। এদিকে, নববিবাহিত দম্পতির ব্যতিক্রমী এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন স্থানীয় সুধীজনেরাও।

(মুমিন ব্যক্তির সবকিছুতেই কল্যাণ!)

রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, ‘‘মুমিনের অবস্থা কতই-না চমৎকার! তার সব অবস্থাতেই কল্যাণ থাকে। এটি শুধু মুমিনেরই বৈশিষ্ট যে, যখন সে আনন্দের উপলক্ষ পায়, আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করে;

ফলে তা হয় তার জন্য কল্যাণবাহী হয়। আর যখন সে কষ্টের সম্মুখীন হয়, তখন সবর করে এবং ধৈর্যে অটল থাকে; ফলে এটিও তার জন্য কল্যাণ বয়ে আনে।’’
[সহিহ মুসলিম: ৭৬৯২]

Leave a Reply

x