ভারত সেনাবাহিনী এবং চীন সেনাবাহিনী মুখোমুখি অবস্থান করছে, যে কোনো সময় শুরু হতে পারে যুদ্ধ

ভারত এবং চীনের মধ্যে চলমান অবস্থা অবনতি হয়েছে।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভারত সরকার তাদের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের কে নিয়ে এবং তিন বাহিনীর প্রধান কে নিয়ে জরুরি বৈঠক করেছেন বলে জানা যায়।

তবে সেই বৈঠকে কি বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে এ বিষয়ে কোনো সুস্পষ্ট বর্ণনা দেওয়া হয়নি।
সেখানে আংশিক কিছু বলা হয়েছে,
যে ভারত এবং চীনের মাঝে যে চলমান বিরোধ চলছে, এইটা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে হবে।

এর মাঝেই ভারত এবং চীনের সেনাবাহিনী দের মধ্যে হাতাহাতি কিছু সংঘর্ষ হয়েছে বলে জানা যায়।

ভারত সেনাবাহিনী এবং চীন সেনাবাহিনী দের মধ্যে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।
তারা উভয়েই লাদাখে মুখোমুখি অবস্থান করছে।

ভারতবর্ষে চীনের সেনাবাহিনী বৃদ্ধি করা হলে ভারতের সেনাবাহিনী ওই স্থানে বৃদ্ধি করা হবে।
এবং ভারত সেনাবাহিনী যে রাস্তার কাজ শুরু করেছে, তা অব্যাহত থাকবে।

লাদাখের এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে ভারতের নিরাপত্তা বাহিনী সজাগ রয়েছে বলে জানা যায়,
এবং তারা প্রতিপক্ষদের ওপর কঠোরভাবে নজরদারি রাখছে।

সূত্রে জানা যায়, লাদাখের উপত্যাকায় এলাকায় চীন সেনা ৫ হাজারেরও বেশি মোতায়েন করা হয়েছে,
সেই সাথে তার প্রতিপক্ষ ভারত হেলিকপ্টারের মাধ্যমে ওই অঞ্চলে সেনা মোতায়েন করছে বলে জানা যায়।

আরো জানা যায়, ওই এলাকায় চীন সেনারা ১০০ বেশি তাঁবু গেড়েছে।
এই ঘটনা শুরু হয় ৫ মে থেকে ভারত এবং চীনের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটতে শুরু করে।
এরপর থেকেই চীন সেনা ২৫০ জনের মতো ভারতের সেনাবাহিনীদের সাথে হাতাহাতি সংঘর্ষের কথা জানা যায়।

৯ মে অভিযোগ করা হয় ভারতের সেনারা চীন অঞ্চলে ঢুকে পড়ে বলে অভিযোগ করেছে চীন।

এরপর থেকেই এদের মধ্যে সম্পর্কের অবনতি ঘটতে থাকে।

Articles You May Like

Leave a Reply

x