ভারত এবং চীনের সামরিক বৈঠকের পর যা ঘটলো

করোনা ভাইরাসের মহামারীতেও চলছে ভারত এবং চীনের মধ্যে চরম উত্তেজনা।
সেই উত্তেজনা নিরসনের জন্য দুই দেশের সামরিক বাহিনী বৈঠক করেছেন।

দু’দেশের সামরিক বৈঠকের পর ভারতের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে,
দুই দেশেই এই কঠিন সংকটময় পরিস্থিতিতে শান্তিপূর্ণ সমাধান চাইছে।

এদিকে বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সীমান্ত বিরোধ নিয়ে ভারত এবং চীনের মধ্যে বৈঠক করেছে দুই দেশের সামরিক বাহিনী।

মূলত তাদের এই বৈঠকের কারণ ছিল এই কঠিন পরিস্থিতিকে নিরসনের জন্য তারা দুই দেশ বৈঠক করেছিল।

এই বৈঠকে করার জন্য রাজি হওয়া পর পূর্ব লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখায় চীনের অভ্যন্তরে মালডোতে ‘বর্ডার পার্সোনেল মিটিং পয়েন্টে’ বৈঠকে বসেন দুই দেশের সেনা কর্মকর্তারা।

ওই বৈঠকে ভারতের পক্ষৎ থেকে নেতৃত্ব দেন কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল হরিন্দর সিং।
এবং ওই বৈঠকে আবার চীনের পক্ষ থেকে নেতৃত্ব দেন তিব্বত মিলিটারি ডিস্ট্রিক্ট-এর কমান্ডার।

তাদের ওই বৈঠকে দু’দেশের পক্ষ থেকে শান্তিপূর্ণ সমাধান চায় সে বলে জানায় ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

তবে ভারতের রাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে সীমান্ত নিয়ে কোনো বিবৃতি বা কোনো গণমাধ্যমকে কিছুই জানানো হয়নি।

সূত্রে জানা যায়, দু’দেশের সামরিক দের বৈঠকের পরেও চীনের হুবেই শহর থেকে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে চীনের একটি বিমান বাহিনী দল একটি বিমান নিয়ে লাদাখের সীমান্ত অঞ্চলে টহল দিয়েছে বলে জানা যায়।

অনেক বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন, দুই দেশের মাঝে যতই বৈঠক করা হোক না কেন,
তবু দু’দেশের মাঝে এই সামরিক সংঘর্ষ তাড়াতাড়ি মিটবে না।

Leave a Reply

x