ব্রেকিং নিউজ! ৪ থেকে ৬ সপ্তাহের মধ্যে ‘করোনা ভাইরাসের’ ভ্যাকসিন পাওয়া যাবে; যুক্তরাষ্ট্র

যুক্তরাষ্ট্রের সরকারের সঙ্গে অংশীদা’রত্বে থাকা ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো গ্রীষ্মের শেষেই ভ্যাকসিন উৎপাদন শুরুর পথে রয়েছে।

নাম প্রকাশ না করে মার্কিন প্রশাসনের এক উর্ধতন কর্মকর্তা গতকা’ল সোমবার এ তথ্য জানিয়েছেন। জেরুজালেম পোস্টের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

মার্কিন ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে কবে নাগাদ ভ্যাকসিনের উপাদান উৎপা’দন ও প্রস্তুত শুরু হবে, সে সেম্পর্কে বলতে গেলে বলা যায়, ৪ থেকে ৬ সপ্তাহ লাগতে পারে।
এর মধ্যে ভ্যাকসিন উৎপা’দন শুরু হবে।

তবে পূর্ণাঙ্গ উৎপাদন প্রক্রিয়া শুরু হবে গ্রীষ্মের শেষে।
ট্রাম্প প্রশাস’নের পক্ষ থেকে উৎপাদন কারখানার সুবিধা বাড়ানো ও কাঁচামাল সংগ্রহে কোম্পানি’গুলোকে সাহায্য করা হচ্ছে।

প্রশাসন ৪টি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন কর্মসূচিকে অপারে’শন র‍্যাপ স্পিড প্রোগ্রা’মের আওতায় আর্থিক সাহায্য করেছে।
তাদের লক্ষ্য, আগামী বছর নাগাদ ৩০ কোটি ভ্যাকসিন ডোজ তৈরি করা।

কয়েক মিলি’য়ন থেকে ১০০ কোটি মার্কিন ডলারের বেশি অর্থ সাহায্য পাওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে জনসন অ্যান্ড জনসন, মডার্না, অ্যাস্ট্রাজেনেকা ও নোভাভ্যাক্স।

যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থকে রিজেনেরন ফার্মাসিউটি’ক্যাল নামের একটি কোম্পানির সঙ্গে কোভিড-১৯ থেরাপি উদ্ভাব’নের জন্য ৪৫ কোটি ডলারের চুক্তি করা হয়েছে। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে এর পরীক্ষা’মূলক প্রয়োগের ফল পাওয়া যাবে।

শরতের মধ্যে কয়েক লাখ ডোজ পাওয়া যাবে।
ট্রাম্প প্রশাস’নের ওই কর্মকর্তা বলেন, দ্রুতগতিতে ভ্যাকসিন তৈরির কাজ এগিয়ে চলছে, যা ইতিহাসে আগে কখনো হয়নি।

থেরাপি আরও দ্রুত উদ্ভাবন হচ্ছে। ভবিষ্য’তে আরও প্রতিষ্ঠানে ভ্যাকসিন তৈরির জন্য তহবিল জোগাবে মার্কিন প্রশাসন।

Articles You May Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *