বোনকে কাছে রাখতে নিজের স্বামীর সঙ্গে বিয়ে দিলেন ‘আলিনা’

পৃথিবীতে কত ধরনের অলৌকিক ঘটনা ঘটে চলেছে।

পাকিস্তানের আরেকটি বিরল ঘটনা ঘটে গেল, যা জানলে আপনি অবাক হয়ে যাবেন।
বোনের প্রতি ভালোবাসা এতটাই বেশি ছিল, যে নিজের চাচাতো বোনকে কাছে রাখার জন্য নিজের স্বামীর সঙ্গে বিয়ে দিলেন এক মেয়ে।

সূত্রে জানা যায়, বিয়ের পর থেকে ওই মেয়েটি তার চাচতো বোনের চোখের আড়াল করতে পারছিলেন না,
তাই তিনি এমন সিদ্ধান্ত বেছে নিলেন, কিন্তু ওই মেয়েটির এই সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না সমাজ।
অলৌকিক ঘটনাটি ঘটেছে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের মুলতানের এক নারী ও তার স্বামী।

আরো জানা যায়, মেয়েটি তার ছোট চাচাতো বোনকে ছোটবেলা থেকেই অনেক আদরে বড় করেছেন।
কোনভাবেই তার ছোট চাচাতো বোন টাকে কষ্ট দিতেন না।
এবং কেউ যদি কষ্ট দিতেন তাহলে তার প্রতিবাদ করতেন।

কিন্তু মেয়েটির বিয়ের পর সে তার চাচাতো বোনকে চোখের আড়াল করতে হয়েছে, এ সময় মেয়েটির অনুশোচনায় এবং একা বোধ করছিলেন।
তাই তার চাচাতো বোন টাকে নিজের কাছে দেখতে নিজের স্বামীর সঙ্গে বিয়ে দিলে।
তাদের এই আশ্চর্যজনক কান্ড গ্রামের লোকজন মেনে নিতে পারছে না।

এদিকে জানা যায়, পাঞ্জাব প্রদেশের মুলতানের সামিজাবাদ এলাকার ফারাজ নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে প্রথমে আলিনা নামের এক ধরনের সঙ্গে বিয়ে হয়।
পরবর্তীতে আলিনা তার চাচাতো বোন আলিস্মাকে নিজের কাছে রাখার জন্য আলিনা তার নিজের স্বামীর সঙ্গে বিয়ে দেয়।

এদিকে স্বামীর ফারাজ জানায়, দুই বোনকে বিয়ের পর দুই পরিবার তাদের কে খুঁজছে, এর পাশাপাশি তাদেরকে মৃত্যুর হুমকি দিচ্ছে,
এবং সে বলেন তাদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করা হয়েছে ।

বিষয়টি জানাজানি হলে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আলিনা বলেন, আলিনা বিয়ের পর তার তার বোনকে খুব একাকিত্ব বোধ করছিলেন,
তাই তার চাচাতো বোনকে নিজের কাছে রাখার জন্য নিজের স্বামীর সঙ্গে বিয়ে দিয়েছেন বলে জানান আলিনা।

অপরদিকে আলিস্মা জানাই, বিয়ের পর তারপর আলিনাকে ছেড়ে তিনি অনেক কষ্ট পাচ্ছিলেন, তাই তিনি তার বোনকে কাছে পাওয়ার জন্য এমন সিদ্ধান্ত মেনে নিয়েছে।

Leave a Reply

x