বাংলাদেশের ১০ টি জেলায় হতে পারে ভয়াবহ বন্যা

দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং মধ্যাঞ্চলের কয়েকটি জেলায় বন্যা পরিস্থি’তির অবনতির আভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। শনিবার আবহা’ওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে,

আগামী ২৪ ঘণ্টায় নীলফামারী, লালম’নিরহাট, রংপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, জামালপুর, নাটোর, সিলেট, সুনামগঞ্জ এবং নেত্রকোণা জেলার নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে।

অপরদি’কে, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, গঙ্গা এবং উত্তর পূর্বাঞ্চলের আপার মেঘনা অববাহি’কার প্রধান নদ নদীরসমূহের পানি সমতল বৃদ্ধি পেতে পারে, যা আগামী ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।

পদ্মা নদীর পানি সমতল স্থিতিশী’ল আছে, যা আগামী ২৪ ঘণ্টায় বৃদ্ধি পেতে পারে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় ব্রহ্মপুত্র নদ, নুন খাওয়া ও চিলমারী পয়েন্টে যমুনা নদী, বাহাদুরা’বাদ, সারিয়াকান্দি ও কাজিপুর পয়েন্টে বিপদসী’মা অতিক্রম করতে পারে।

আগামী ২৪ ঘণ্টায় তিস্তা নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি পেতে পারে। এবং বিপদসীমার উপর দিয়ে অতিক্রম করতে পারে। অপর’দিকে, ধরলা নদীর পানি সমতল বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে।

এছাড়া মেঘনা অববাহি’কার সুরমা নদী সিলেট পয়েন্টে পুরাতন সুরমা নদীর দিরাই পয়েন্টে এবং সোমেশ্বরী নদী, দুর্গাপুর ও কলমাকান্দা পয়েন্টে বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে।

দেশের ১০১টি পর্যবেক্ষ’ণাধীন পানি সমতল স্টেশনের মধ্যে বৃদ্ধি পেয়েছে ৬৬টির, হ্রাস পেয়েছে ৩৩টির, অপরিবর্তি’ত রয়েছে ২টি এবং বিপদসীমা’র উপরে রয়েছে ৭টির।

সারাদেশে বৃষ্টির গড় ২৫২ মিলিমিটার, মহেশখোলা ২২৩ মিলিমিটার, দূর্গাপুর ১৮২ মিলিমিটার, সুনামগঞ্জ ১৩৩ মিলিমিটা’র বৃষ্টিপাত হয়েছে।

দেশের ২৩টি জেলার মানুষ বন্যাকব’লিত হতে পারে বলে ইতিমধ্যে আভাস দিয়েছে সরকার। এসব অঞ্চলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান’গুলো বন্যার্তদের জন্য প্রস্তুত রাখতে বলা হয়েছে। এছাড়া ত্রাণ ও পুনর্বাসন কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে বন্যা দুর্গত এলাকা’য়।

Articles You May Like

Leave a Reply

x