পাহাড়ি টিলায় স্কুল ছাত্রীকে দলবদ্ধ ধর্ষণ; গ্রেপ্তার ৫

জামাল’পুরের বকশিগঞ্জে পাহাড়ে তুলে এক স্কুল ছাত্রী’কে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। স্কুল ছাত্রী’কে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে ৫জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গতকাল বৃহস্পতি’বার বিকেলে উপজেলার লাউচাপড়া পিকনিক স্পটের পাশে একটি পাহাড়ি টিলায় স্কুল ছাত্রী’কে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। পরে খবর পেয়ে ঘটনা’স্থল থেকে স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করে এবং এ সময় অভিযুক্ত ৫ জনকে আটক করেছে বকশি’গঞ্জ থানা পুলিশ। এই ঘটনায় স্কুল ছাত্রী বাদী হয়ে শুক্রবার গভীর রাতে বকশি’গঞ্জ থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ধর্ষণের শিকার স্কুল ছাত্রী’র বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলার কোমর’ভাঙ্গি পুরাতন পাড়া গ্রামে। আসামিরা সেই স্কুল ছাত্রীর প্রতি’বেশী। বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রতিবেশী ৫ জন যুবক বে’ড়ানোর কথা বলে ওই স্কুল ছাত্রী’কে নিয়ে লাউচাপড়া পিকনিক স্পটে আসেন। লক’ডাউনে পিকনিক স্পট বন্ধ থাকায় আশে পাশের পা’হাড়ে বেড়াতে থাকেন তারা। এক পর্যায়ে পিকনিক স্পটের পাশে এক পাহা’ড়ের টিলায় নিয়ে সেই কিশোরী’কে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে প্রতিবেশী ৫ জন যুবক। পরে ধর্ষ’ণের শিকার সেই স্কুল ছাত্রী’র ডাক চিৎকারে স্থানীয় লোক’জন ঘটনাস্থলে আসে।

এ সময় ৫ যুব’কের মধ্যে ২ জন যুবক দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে ওই স্কুল ছাত্রী’সহ ৩ ধর্ষককে আটক করে স্থানীয় কয়েক’জন যুবক। এ সময় স্থানীয় ওই যুবকরা তাদের কাছে চাঁদা দাবি করে। পরে পুলিশ এ খবর পেয়ে সন্ধ্যার দিকে ঘটনাস্থল থেকে সেই স্কুল ছাত্রী’কে উদ্ধার করে। এ সময় ৩ জন ধর্ষক ও স্থানীয় ২ জনকে আটক করে বকশিগঞ্জ থানা পুলিশ। ধর্ষণের অভি’যোগে গ্রেপ্তারকৃত ৩ জন কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজেলার কোমর’ভাঙ্গি পুরাতন পাড়া গ্রামের মো. শফিকুল ইসলামের ছেলে মো. হুসাইন শান্ত (২১), আজিজুল বেপারীর ছেলে মো. আমিনুল (২১), মো.তজিমুলের ছেলে আঙ্গুর আলম(২৩)।

এ সময় চাঁদা দাবির অভিযোগে গ্রেপ্তার’কৃতরা জামালপুর জেলার বকশিগঞ্জের পলাশতলা এলাকার হান’বির ছেলে হিটলার (৪৮) ও পৌর এলাকার চর কাউরিয়া সীমার পাড় এলাকার মৃত রেজাউল করিমের ছে’লে আজাদ (৫০)।

পলাতক ধর্ষনের অভি’যোগে অভিযুক্ত ২ জন কুড়িগ্রাম জেলার রৌমারী উপজে’লার কোমরভাঙ্গি পুরাতন পাড়া গ্রামের মো. আশরা’ফ আলীর ছেলে মো. শফি আলম, মো. সিরাজুল ইস’লামের ছেলে মো. রুহুল আমিন। শুক্রবার সকালে আটক’কৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

বকশীগঞ্জ থানার ভার’প্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, আটক’কৃতরা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের কথা স্বী’কার করেছেন। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে’র চেষ্টা চলছে। শুক্রবারে তাদের আদাল’তের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। উদ্ধার’কৃত স্কুল ছাত্রীকে ডাক্তারি পরীক্ষায় জন্য জামাল”পুর জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

x