নোয়াখালী বিভাগ হয়ে গেছে? : রশীদ খান

শিরোনাম দেখে চমকাবেন না। আমরা সকলে জানি ক্রিকেটার মোঃ সাইফুউদ্দীন ফেনীর সন্তান। এবং ফেনী জেলা থেকে জাতীয় দলে খেলা প্রথম ক্রিকেটার। বিশ্বকাপ শেষ করে ফেনীতে ফিরেই পেয়েছিলেন রাজকীয় সংবর্ধনা। সাইফউদ্দীন নিজেই বলেছেন ফেণীকে নিয়ে তিনি নিজেও অনেক গর্বিত।
আজ মিরপুরে জিম সেন্টারে জিমে সময় কাটাচ্ছিলেন শ্রীলংকা সফর মিস করা সাইফ। সে সময় তিনি তাহমিদ অমিতের সাথে শেয়ার করেন বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে ম্যাচ চলাকালীন একটা অভিজ্ঞতা। ইনিংসের ১৭ তম ওভারে বাউন্ডারীতে ফিল্ডিং করছিলেন মোঃ সাইফুদ্দীন। তিনি জানান এ সময় অনেক বাংলাদেশী দর্শক তাকে “সাইফ ভাই,সাইফ ভাই” বলে ডাকতে থাকেন। ক্রিকেট মাঠে যা খুবি সাধারণ একটি বিষয়। এর মাঝে তাকে ভারতীয় এক দর্শক ডেকে বলেন “সাইফ ভাই নোয়াখালী বিভাগ চাহিয়ে?” । সাইফুউদ্দীন বলেন একথা শুনার পর তিনি অনেক হেসেছিলেন এবং অবাক হয়েছেন যে ভারতীয়রাও এই বিষয়টা জানে!!
গত মৌসুমের আগের মৌসুমে বিপিএলে কুমিল্লার হয়ে একই দলে খেলেছেন রশীদ খান ও মোঃ সাইফুউদ্দীন। সাইফউদ্দীনের সাথে রশীদ খানের ব্যাক্তিগত সম্পর্ক যথেষ্ট ভালো। কুমিল্লার ড্রেসিং রুমে সবাই রশীদ খানকে তার বয়স নিয়ে ক্ষেপাতো। রশীদ কারো কাছে শুনেছিলো সাইফউদ্দীনের বাড়ি নোয়াখালীর পাশেই ফেনীতে। যার কারনে সে “নোয়াখালী বিভাগ চাহিয়ে ” বলে সাইফকে ক্ষেপাতো।
বিশ্বকাপে আফগানিস্থানের বিপক্ষে ম্যাচ শেষে হ্যান্ডশেক করার সময় রশীদ খান সাইফউদ্দীনের হাত ধরে রেখে বলে “সাইফ নোয়াখালী বিভাগ হোগায়া?” অর্থ্যাৎ “সাইফ নোয়াখালী কি বিভাগ হয়ে গেছে?”
©ক্রিকসেল

Leave a Reply

x