নামাযের পর মোনাজাত না করায়, ইমাম-মুয়াজ্জিনের বেতন বন্ধ

নরসিংদীর পলা’শ উপজেলার ইছাখালী ডিগ্রি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও মাদ্রাসা সংলগ্ন অবস্থিত বায়তুল আমান জামে মসজিদ কমিটির সভাপতি আ.ক.ম রেজা’উল করিমের একক সিদ্ধান্তে দীর্ঘ ছয় মাস যাবত মসজিদে নামাযের পর দো’য়া মোনাজাত বন্ধ।

তার এই একক সিদ্ধান্তের ফলে ৬ মাস যাবত ইমাম মোয়াজ্জিনের বেতন ভাতা বন্ধ করে দিয়েছে স্থানীয় দোকা’নদার ও এলাকা’বাসী। ফলে মানবেতর জীবন করছেন মসজিদের ইমাম ও মোয়াজ্জিন।

স্থানীয় এলাকা’বাসীর জানান, বাপ দাদার আমল থেকে এই মসজিদে নামায আদায় করে আসছি। আজ পর্যন্ত কোন দিন নামাযের পর মোনাজাত বন্ধ হতে দেখিনি। মাদ্রা’সার অধ্যক্ষ ও মসজি’দ কমিটির সভাপতি আ.ক.ম রেজাউল করিম এ কমিটিতে আসার কিছু দিন পর থেকেই নামাযে’র পর মোনাজাত বন্ধ করে দিয়েছে’ন।

এ বিষয়ে আম’রা প্রতিবাদ করলে ওনি আমা’দের বলেন, এটা মাদ্রাসা মসজিদ। যার মনে চায় আসবে যার মনে না চায় না আসবে। আর বেশি প্রশ্ন করলে তিনি স্থানীয় এক প্রভাব’শালী নেতার ভয় দেখান।

তাই দোকান’দার ও এলাকাবাসী মাসিক চাঁদা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। এ নিয়ে মসজিদ কমিটির একাংশ ও স্থানীয় এলাকাবাসী’র মাঝে চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

মসজিদ কমিটি’র সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম সিকদার জানান, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও মসজিদ কমিটির সভাপতি আ.ক.ম রেজাউল করিমের একক সিদ্ধান্তে ছয় মাস যাবত নামাযের পর মোনাজাত বন্ধ। তাই দোকানদার ও এলাকাবাসী চাঁদা দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। যার ফলে ইমাম-মোয়াজ্জি’নের বেতন দিতে পারছি না।

মসজিদের ইমাম মাওলানা নজরুল ইসলাম জানান, ৬ মাস যাবত কোন বেতন ভাতা পাচ্ছিনা। খুব কষ্টে দিন কাটাচ্ছি। মসজিদে’র মোয়াজ্জি’ন জসিম উদ্দিন জানান,মসজিদের সভাপতি ও স্থানীয় এলাকাবাসীর মাঝে মত’বিরোধ থাকায় ছয় মাস যাবৎ কোন বেতন ভাতা পাচ্ছি না।

এ বিষয়ে মাদ্রাসা’র অধ্যক্ষ ও মসজিদ কমিটির সভাপতি আ.ক.ম রেজা’উল করিম জানান,যা করেছি কোরআন হাদিসের আলো’কে করেছি। এখানে আমার কোন ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত নাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *