দুর্ঘটনায় ডুবে যাওয়া লঞ্চ থেকে, দীর্ঘ ১৩ ঘণ্টা পর জীবিত মানুষ উদ্ধার

সোমবার (২৯ জুন) বুড়িগঙ্গা নদীর শ্যামবাজার এলাকায় একটি লঞ্চ দুর্ঘটনা ঘটে,
দুর্ঘটনায় অনেক যাত্রী নিহত হয় এবং অনেকেই প্রাণে বেঁচে যায়।
এবার অবিশ্বাস্যভাবে একজন প্রাণে বেঁচে গেল ডুবে যাওয়া লঞ্চ থেকে।

প্রায় ৫০ ফুট পানির নিচে ডুবে যাওয়া ‘মর্নিং বার্ড’ লঞ্চ এর মধ্যে থেকে প্রায় ১৩ ঘণ্টা পর এক ব্যক্তিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা যায়।
লোকটির আনুমানিক বয়স ৪০ বছর।

ঢাকা নদী বন্দরের যুগ্ন পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন বলেন, সোমবার (২৯ জুন) সকালের ৯ টার দিকে যখন লঞ্চটি ডুবে যায়, এরপর থেকেই লঞ্চের উদ্ধার কাজ চালানো হয়।

রাত সাড়ে দশটার দিকে যখন ডুবুরিরা ওই লঞ্চ টিকে টিউবের মাধ্যমে উপরে তোলার চেষ্টা করা হয়, চেষ্টা করার পর লঞ্চ টির কিছু অংশ উপরে ভেসে উঠলে লঞ্চে থাকা ওই লোকটি নিজের ইচ্ছায় বাইরে বেরিয়ে আসে।

এই বিষয়টি সবার মাঝে কৌতূহল শুরু হয়
ফায়ার সার্ভিস জানিয়েছেন, উদ্ধার করা ব্যক্তির নাম সুমন বেপারী,
তিনি পেশায় একজন ব্যবসায়ী,
তিনি মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ীর আব্দুল্লাপুর গ্রামের একজন বাসিন্দা।

পরবর্তীতে সুমন বেপারী কে উদ্ধার করে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।

ডুবুরিরা তাকে উদ্ধারের পরে লাইফ জ্যাকেট দিয়ে মুড়িয়ে তার দেহ মেসেজ করে দিয়ে দেহের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে।

কিছুক্ষণ পর ওই ব্যক্তি চোখ খুলে তাকান, এবং সবার সাথে চোখের ইশারায় কথা বলার চেষ্টা করেন।
নৌবাহিনী এবং নৌ-পুলিশ কর্মকর্তারা জানান, তাকে উদ্ধারের পর তার কাছ থেকে বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে সে চোখের ইশারায় বলার চেষ্টা করেন।

তবে সে ব্যক্তি টি দীর্ঘ সময় পানির নিচে থাকার কারণে তার দেহের তাপমাত্রা এবং অক্সিজেন লেভেল একদম নিচে নেমে গেছে।
তাই তাকে চিকিৎসার জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

Articles You May Like

Leave a Reply

x