ঊ’র্ধ্বতন এক পুলিশ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গ্রেফতারদের কেউ তালেবানকে সরাসরি সমর্থন করেন, কেউ তালেবানকে সমর্থন না দেয়ার জন্য ভারত সরকার ও গণমাধ্যমের সমালোচনা করেন।

যা সা’ম্প্রদায়িক দাঙ্গা তৈরি করতে পারে। তিনি আরও বলেন, তেঁজপুর মেডিকেল কলেজের ছাত্রসহ আসামের ১৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আ’সাম পুলিশের একটি সাইবার সেল তাদের গ্রেফতার করে। যারা সব সময় সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ওপর নজরদারি করে।

আ’সাম পুলিশের বিশেষ শাখা (এসবি) এই অভিযানের তদারকি করছে।

ডে’পুটি ইন্সপেক্টর জেনারেল ভায়োলেট বারুয়া বলেছেন, আসাম পুলিশ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তালেবানপন্থী মন্তব্যের বিরুদ্ধে কঠোর আ’ইনি ব্যবস্থা নিচ্ছে যা জাতীয় নিরাপত্তার জন্য ক্ষতিকর।

তিনি টুইটে আরও বলেন, আমরা এ ধ’রনের ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা করছি। তাছাড়া সামাজিক মাধ্যমে এমন পোস্ট কারো দৃষ্টিগোচর হলে দয়া করে পুলিশে জানান।

পুলিশ সূত্র জানিয়েছে, সামাজিক মাধ্যমে তালেবানকে সমর্থন করা ১৭-২০টি আইডি চিহ্নিত করা হয়েছে।

আসামের ১১টি জেলা ছাড়াও রাজ্যের বাইরে থেকে তিনটি, দুবাই, সৌদি-আরব এবং মুম্বাই থেকে যথাক্রমে একটি করে পোস্ট দেয়া হয়েছে।

তারা সবাই আসামের নাগরিক। বাইরের তিন জনের তথ্য যাচাই-বাছাই শেষে ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর কাছে বিস্তারিত তথ্য হস্তান্তর করা হবে।