গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার অবনতি

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা জাফরুল্লাহ চৌধুরী গণমাধ্যমে একজন আলোচিত ব্যক্তি।
বেশ কিছুদিন আগে ডাক্তার জাফরুল্লাহ চৌধুরী করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হয়েছিলেন।

এরপর ডাক্তার জাফরুল্লাহ চৌধুরী ডাক্তারি চিকিৎসা দিয়ে করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তি পান।
তিনি করোনাভাইরাস থেকে পুরোপুরি আরোগ্য লাভ করে।

এরপর তার শারীরিক অবস্থা আবার অবনতি হতে শুরু করে।
ডাক্তারি সূত্রে জানা যায়, ডাক্তার জাফরুল্লাহ চৌধুরী বর্তমানে নিউমোনিয়া রোগে ভুগছেন।

তার কন্ঠ নালিতে প্রদাহের কারণে তার কথা বলা বর্তমানে নিষেধ করে দেওয়া হয়েছে।
এর পাশাপাশি তার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে উদ্ভাবিত করোনার কিট অনুমোদন না পাওয়ায় তিনি খুবই উদ্বিগ্ন।

মঙ্গলবার (৩০ জুন) বিকালে ডা. মুহিব উল্লাহ খোন্দকার এক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছেন।
বিজ্ঞপ্তিতে মুহিব উল্লাহ খোন্দকার বলেছেন, ‘ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী কোভিড-১৯ পরবর্তী সেকেন্ডারি নিউমোনিয়ায় ভুগছেন।

সপ্তাহে তিনবার ডায়ালাইসিস নির্ভর কিডনি রোগী হিসেবে দীর্ঘ এক মাস রোগ ভোগের কারণে শরীর খুবই দুর্বল। স্বরযন্ত্রে প্রদাহের কারণে বর্তমানে কথা বলা নিষেধ।
আল্লাহর রহমত, এ দেশের হাজারও মানুষের দোয়া এবং সীমাহীন মানসিক দৃঢ়তায় তিনি রোগের সঙ্গে লড়ে যাচ্ছেন।’

ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর অসুস্থতা কে কেন্দ্র করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ব্যক্তিগত চিকিৎসক অধ্যাপক এ বি এম আবদুল্লাহ তিনি নিজে এসে ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছেন।

তিনি জাফরুল্লাহ চৌধুরী শারীরিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে প্রয়োজনীয় পরামর্শ দিয়েছেন,
এবং তিনি আরও বলেছেন জাফরুল্লাহ চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার অগ্রগতি সম্পর্কে নিয়মিতভাবে তাকে জানাতে বলেছেন।

ড. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর নেতৃত্বে গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতলে ১৫ শয্যাবিশিষ্ট আইসিইউ শয্যা চালু করা হচ্ছে,
জাফরুল্লাহ চৌধুরী নিজে অসুস্থতার মাঝেও অর্থের যোগানের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *