কৃষ্ণ মন্দিরের নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দিলেন পাকিস্তান সরকার

ইসলামি সংগঠন জামিয়া আস’রফিয়ার জারি করা ফতোয়ায় শেষমেশ পিছু হটেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ইসলামা’বাদের প্রথম শ্রীকৃষ্ণ মন্দির নির্মাণের কাজ আপাতত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তা’ন সরকার। খবর জি নিউজের।

কয়েকদিন আগেই ইমরান খানের সরকার এই মন্দির নির্মাণের জন্য ১০ কোটি রুপি অনু’দান দেয়ার ঘোষণা দিয়েছিল। ইসলামাবাদের এইচ-৯/২ সেক্টরে এই মন্দির প্রতি’ষ্ঠা হওয়ার কথা ছিল।

পাকিস্তানের মানবাধিকার বিষয়ক সংসদীয় সম্পাদ’ক লাল’চাঁদ মাহি গত সপ্তাহেই মাটি খুঁড়ে মন্দির প্রতিষ্ঠার কাজের সূচনা করেছিলেন। কিন্তু দুইদিন আগেই জামিয়া আসরফি’য়া নামের একটি ইসলামি সংগঠন মন্দির প্রতিষ্ঠা নিয়ে প্রশ্ন তোলে।

জামিয়া আসরফিয়া মন্দির নির্মাণ রুখতে ফতোয়া জারি করেছিল। তাদের দাবি ছিল, পাকিস্তানে সংখ্যা’লঘুদের যে কয়েকটি ধর্মস্থান রয়েছে সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণ করা যেতে পারে।

কিন্তু নতুন করে আর কোনও মন্দিরের প্রতিষ্ঠা করা যাবে না। জন’গণের করের টাকায় মন্দির নির্মাণ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিল এই সংগঠন।

আর এতে পিছু হটেছে পাকিস্তান সরকার। যদিও লাল চাঁদ মাহি বলে’ছিলেন, কোনও বাধা তারা আর মানবেন না। মন্দির প্রতিষ্ঠা হচ্ছেই। তবে চাপের মুখে তিনিও নতিস্বীকার করতে বাধ্য হলেন।

পাকিস্তানের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সংখ্যালঘু’দের ধর্মীয় ভাবাবেগের মূল্য দেয়া হবে। তবে আপাতত মন্দির নির্মাণের কাজ বন্ধ রাখা হবে। ভবিষ্যতে এই মন্দির নির্মাণের জন্য অনুদান দেয়ার ব্যাপারে ভেবে দেখা হবে।

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে হিন্দু কাউন্সিল’কে ক্যাপিটেল ডেভেলপমেন্ট কর্তৃপক্ষ ইসলামাবাদের ওই এলাকায় ২০ হাজার বর্গ কিলোমিটার জমি মন্দির নির্মাণের জন্য দিয়ে’ছিলে। কিন্তু ইসলামাবাদ হাইকোর্ট ক্যাপিটেল ডেভেলপমেন্ট কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে নোটিশ জারি করেছিল।

হাই’কোর্ট জানিয়েছিল, মন্দির নির্মাণ শহরের মাস্টারপ্ল্যানের বিরুদ্ধে। এই মন্দির নির্মান হলে ইসলামাবা’দের হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষদের আর প্রার্থনার জন্য রাওয়াল’পিন্ডি যেতে হতো না।

Articles You May Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *