একেকজন বাংলাদেশি একেকটা ভাইরাস বোমা; ইতালির প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশে’র সঙ্গে ইতালির ফ্লাইট বন্ধের যৌক্তি’কতা নিয়ে মুখ খুলেছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তে। চলতি সপ্তাহে স্পেনের রাজ’ধানী মাদ্রিদে রাষ্ট্রীয় সফর’কালে স্থানীয় একটি টেলিভিশ’নের সাংবাদিকদের কাছে ফ্লাইট বন্ধ নিয়ে খোলা’মেলা আলোচনা করেন কন্তে।

এসময় কন্তে বলেন, ‘সম্প্রতি বাংলা’দেশ থেকে আসা বেশিরভাগ যাত্রী’দের মধ্যে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হচ্ছে। এছাড়াও এদেরমধ্যে বেশির’ভাগ মানুষ ইতালি ফিরে হোম কোয়া’রেন্টাইন মানছেন না।

এতে তাদের দ্বারা আরো মানুষ সংক্র’মিত হচ্ছে। আমরা এক জরিপে দেখেছি বাংলাদেশ থেকে আসা প্রায় ৭০ শতাংশ মানুষ করোনা ভাইরাস বহন করে নিয়ে আসছে।

এরা কিভাবে বাংলাদেশের ইমি’গ্রেশন পাড় হলো সেটা অবশ্যই ভাবার বিষয়। আমরা সুস্পষ্ট করে বলতে পাড়ি বাংলাদে’শের ইমগ্রেশনে সঠিক’ভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয় না’।

এসময় তিনি আরও বলেন, ‘বাংলা’দেশিরা কোনো ধরনের পর্যবে’ক্ষণ ছাড়াই ইমিগ্রেশন পাড় হয়ে ইতালি এসে এখানে এ ভাইরা’সের সংক্রমণ ঘটাচ্ছে ।

তাই আমরা বাধ্য হয়ে ফ্লাইট বন্ধ করেছি। একেকজন বাংলাদেশি একেক’টা ভাইরাস বোমা। আমরা আমাদের দেশকে বোমা থেকে দূরে রাখতে আপাতত ফ্লাইট স্থগিত করেছি।

এছাড়াও বৃহস্পতিবার দেশটির স্বনামধন্য পত্রিকা ‘কোররী’য়েরা দেল্লা সেরা’ এক প্রতিবেদনে বলেছে, ইতালির সরকার আপা’তত বাংলা’দেশসহ ১৩টি দেশের সঙ্গে চলতি মাসের ১৪ তারিখ পর্যন্ত সকল ফ্লাইট বাতিল করেছে।

দেশগু’লো হলো- আরমানিয়া, বাহরাইন, বাংলাদেশ, ব্রাজিল, বসনিয়া, চিলি, কুয়েত, উত্তর মাচেদোনিয়া, মলদোভা, ওমান, পানামা, পেরু ও রিপাবলিক ডমেনিকান।

দেশটির স্বাস্থ্য’মন্ত্রণালয়ের এক বিজ্ঞ’প্তিতে বলা হয়েছে, এসব দেশে যদি কেউ বিগত ১৪ দিনের মধ্যে ট্রানজিট বা অবস্থা’ন করে তারা আপাতত ইতা’লিতে প্রবেশ করতে পার’বেনা।

এমনকি কোন ইতালি’য়ান নাগরি’কও যদি এসব দেশে গত ১৪ দিনের মধ্যে ভ্রমণ করে থাকে তাহলে তারাও আপা’তত ইতালিতে প্রবেশ করতে পারবেনা।

Leave a Reply

x