আমাকে ৬ মাসের বেশি সময় আটকে রাখা যাবে না; প্রতারক সাহেদ

গ্রেফতার হওয়া রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসা’বাদ করেছে র‍্যাব।
সেখানে উপস্থিত থাকা কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, জিজ্ঞাসাবাদের সময় সাহেদ অনেক’টা নির্ভার ছিলেন।

এসময় বেশ কয়েক’বার দম্ভোক্তি করেন তিনি। র‍্যাব কর্মকর্তাদের চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়ে সাহেদ বলেন, আমাকে ছয় মাসের বেশি সময় আটকে রাখা যাবে না।

নিজের পত্রিকার লাইসেন্স আছে উল্লেখ করে যে সকল সংবাদমাধ্যম ও সাংবাদক’র্মীরা তার ছবি তুলছে এবং সংবাদ প্রকা’শ করছে তাদেরও দেখে নেবার হুমকি দেন তিনি র‍্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, সাহেদ একজন ঠাণ্ডা মাথার প্রতার’ক। তিনি আগেও জেলে গেছেন।

ফলে আইনি বিষয়’গুলো তার ভালোভাবেই জানা। সে নানা সময় নানা কথা বলছে। বিভ্রান্তিকর তথ্যও দিচ্ছে। র‍্যাবের অভিযান শুরু হওয়ার পর সাহেদ বার’বার স্থান পরিবর্তন করছিল বলে জানান র‍্যাব কর্মকর্তারা।

জিজ্ঞাসা’বাদে সাহেদ জানান, প্রথমে তিনি মহেশখালির একটি সাইক্লোন সেন্টারে ছিলেন। পরে সেখান থেকে চলে আসেন কুমিল্লায়। এরপর চলতি মাসের ১২ তারিখে তিনি ঢাকার গুলশানে আসেন।

কিন্তু এখানে নিরা’পদ মনে না করা’য় চলে যান সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী এলাকায়। সেখানে গিয়ে দালাল’দের মাধ্যমে ভারতে চলে যাওয়ার পরিকল্পনা করতে থাকেন তিনি।

এরমধ্যেই গোয়ে’ন্দা জালে আটকা পড়ে আজ ভোরে র‍্যাবের হাতে আটক হন তিনি। র‍্যাবের গণমাধ্যম পরিচা’লক আশিক আহমেদ বলেন, আমরা কিছু দালালের খোঁজ পেয়েছি।

Articles You May Like

Leave a Reply

x