আমরা আওয়ামী লীগ করি, আমাদের প্রথম পরিচয় বাঙালি, তারপর মুসলিম-হিন্দু-খ্রীস্টান; তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন, আমরা যারা আওয়া’মী লীগ করি আমাদের প্রথম পরিচয় হচ্ছে বাঙালি। আমাদে’র দ্বিতীয় পরিচ’য় কে হিন্দু, কে মুসলিম, কে বৌদ্ধ, কে খ্রীস্টান।

এটিই হচ্ছে যারা আওয়া’মী লীগ করেন তাদের সাথে যারা বিএনপি জামাত করেন তাদের পার্থক্য। শনিবার দুপুরে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজে’লা পরিষদ অডিটরিয়ামে সকল ধর্মের নেতৃবৃন্দে’র সাথে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতি’থির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টানসহ সকল সম্প্রদায়ের মিলিত রক্ত’স্রোতের বিনিময়ে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছিল। লাল সূর্য খচিত সবুজ পতাকায় জন্ম হয়েছে বাংলা’দেশ।

আজকে আমরা মুসলমান হিন্দু বৌদ্ধ খ্রীস্টান যেভাবে সুন্দর করে বসেছি আমাদের বাংলা’দেশও ঠিক এরকম সুন্দর। মন্ত্রী বলেন, সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্পকে চিরতরে বিদায় করার লক্ষ্যেই সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র ব্যবস্থা পাকিস্তান থেকে আমরা বেরিয়ে এসেছিলাম।

তাই এই বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িক’তার কোন স্থান নাই।
সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প যারা ছড়ায় তারা প্রকৃতপক্ষে মানবতা ও বাংলাদেশের শত্রু।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতি’থি ছিলেন বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার বড়ুয়া, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের সাধারন সম্পাদক হাফেজ মাওলানা রুহুল আমিন আলকা’দেরী,

রাঙ্গুনিয়া সংঘরাজ ভিক্ষু সমিতির সভাপতি ধর্মসেন মহাস্থবির, সাধারন সম্পাদক সুমঙ্গল মহাথের, রাঙ্গুনিয়া বৌদ্ধ কৃষ্টি প্রচার সংঘের সভাপতি জ্ঞানবংশ মহাথের, সৈয়দবাড়ি ধর্মপ্রবর্তন বিহা’রের অধ্যক্ষ পরমানন্দ থের।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন অসাম্প্রদা’য়িক মানুষ। তার নেতৃত্বে আমরা কীভাবে অসাম্প্রদায়িকতাকে লালন করতে হয় কীভাবে মুসলমান, হিন্দু , বৌদ্ধ, খ্রীস্টান ভাই-ভাইয়ের মতো মিলিত হয়ে চলতে হয়, সেই শিক্ষা আমরা পেয়েছি।

আমাদের রাঙ্গুনিয়ার প্রতিটি গ্রামের চিত্র হচ্ছে হিন্দু বৌদ্ধ মুসলমান একযোগে সুন্দর’ভাবে বসবাস করছে। আমার গ্রাম সুখবিলাসে হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রীস্টানের পাশাপাশি চাকমা মারমা’রাও আছে।
সূত্রে: ইমান২৪.কম

Articles You May Like

Leave a Reply

x